আজ মীনা দিবস

পরিচয় ডেস্ক: 

মেয়ে শিশুর সমঅধিকার প্রতিষ্ঠা ও মেয়ে শিশু ইস্যু আরো জোরদার করে তোলার প্রতীক হিসেবে ইউনিসেফ গৃহীত কার্যক্রম মীনা গণযোগাযোগ কর্মসূচিকে জনপ্রিয় করে তোলার জন্য সার্ক প্রতিবছর ২৪ সেপ্টেম্বর দিনটিকে মীনা দিবস হিসেবে পালনের ঘোষণা দিয়েছে দক্ষিণ এশিয়ায়। মেয়েদের সমস্যার প্রতি মনোযোগের সঙ্গে গুরুত্ব প্রদান এবং তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার উপলব্ধি থেকে সার্ক ১৯৯০ দশককে কন্যা শিশু দশক হিসেবে ঘোষণা দেয়। এই ঘোষণার আলোকে দক্ষিণ এশিয়ার ইউনিসেফ এবং তার সহযোগীদের মিলিত উদ্যোগে গ্রহণ করে মীনা কেন্দ্রিক কর্মসূচি। যা বিপ্লবী এবং সৃজনশীল গণযোগাযোগ কার্যক্রম। এই কার্যক্রমের ভিত্তিতে ইউনিসেফ প্রচার মাধ্যমের জন্য তৈরি করে মীনা কার্টুন, কমিক বই ও শিক্ষা উপকরণ ।


মীনা অতি পরিচিত ও জনপ্রিয় কার্টুন বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার শিশুদের কাছে।এই কার্টুন ছবির প্রধান চরিত্র মীনা এ অঞ্চলের মেয়ে শিশুদের প্রতীক। মীনা কে খুঁজে পাওয়া যাবে এ অঞ্চলের যে কোনো বাসাতে। এরকম একটি শিশু মেয়ে চরিত্র নিয়ে মীনা কার্টুন ছবিতে তুলে ধরা হয়েছে মীনা পরিবারের কাহিনী। সার্কভুক্ত দেশগুলোতে টেলিভিশনে এটি ১৩ পর্বে দেখানো হয়েছে। কাহিনীটি অ্যাডভেঞ্চার ও কমেডিসমৃদ্ধ । একই সঙ্গে প্রতিফলিত হয়েছে মেয়ে শিশুদের সমস্যা। কাহিনীতে দেখানো হয়েছে কীভাবে মেয়ে শিশু এবং তার পরিবার রূপান্তর করে তাদের জীবন, সমাধান করে উন্নয়ন সমস্যা ও উন্নত করে যোগাযোগের দক্ষতা ।


বাংলাদেশেও শিশুদের প্রিয় কার্টুন মীনা। এখানে গ্রামের লাখ লাখ মানুষ ৬৭টি ভ্রাম্যমাণ ফিল ইউনিটের মাধ্যমে মীনা কার্টুন দেখেছে। ৪৭ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিতরণ করা হয়েছে মীনা কমিক বই। বাংলাদেশে স্কুলে ভর্তি হওয়া মেয়ে শিশুরা ঝরেও পড়ে বেশি মাত্রায় । এখানে মীনার আবেদন খুবই কার্যকর । মীনা কার্টুন ছবির দর্শক শুধু শিশুরাই নয়। বড়রাও বিশেষ করে রাজনীতিক, নীতিনির্ধারক, পদস্থ কর্মকর্তা নগর ও গ্রামের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিরাও উপভোগ করছেন মীনা টেলিভিশনের মাধ্যমে। মীনা বিষয়ে পাপেট শো, রেডিও জিংগেল ও গানও বেরিয়েছে। অনানুষ্ঠানিক শিক্ষা কর্মসূচির বাস্ততায় অনেক এনজিও মীনা সরঞ্জাম বিতরণ করছে।
মীনা ইতোমধ্যে দক্ষিণ এশিয়ার জনপ্রিয়তার সীমানা অতিক্রম করে পৌছে গেছে আরবি বার্মিজ এবং চীনা ভাষাসহ ৩০টিরও বেশি ভাষার পথ ধরে। দক্ষিণ এশিয়ার সমাজ এবং পরিবারে শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠা বিশেষ করে অল্প বয়সী মেয়েদের দুর্দশা ঘুচানো, শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবা, পুষ্টি এবং উন্নয়নের ক্ষেত্রে সমঅধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য কঠিন সত্যের মুখোমুখি সংগ্রামী চরিত্র মীনা । মীনা কার্টুন ছবিতে সে উদঘাটন করে বৈষম্যের স্বরূপ ও তার কারণ। মেয়েদেরও যে ক্ষমতা আছে, নিজেদের পছন্দ, অপছন্দ আছে তা যুক্তি দিয়ে তুলে ধরে মীনা । মেয়েদের জীবন পাল্টে দেয়ার ক্ষেত্রে মীনা পালন করে অনুঘটকের ভূমিকা।

আপনার মতামত দিন