একাত্তরের গণহত্যা : মাহমুদপুর গ্রাম

দুরন্ত ইসলাম:

১৯৭১ সালের ২২ এপ্রিল পাকিস্তানি বাহিনী ৩১ বেলুচ রেজিমেন্টের হানাদাররা জামালপুর শহরে প্রবেশ করে পিটিআই ভবনে তাদের ক্যাম্প স্থাপন করে। শহরে ক্যাম্প স্থাপনের পরে পাকিস্তানি বাহিনীরা জামালপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ছড়িয়ে পড়ে উপজেলা ভিত্তিক ক্যাম্প স্থাপন করে।

পাকিস্তানি বাহিনী এদেশীয় দোশর রাজাকার, আলবদর এবং শান্তি কমিটির সদস্যের সহযোগিতায় জামালপুর জেলার বিভিন্ন স্থানে আক্রমণ করে হাজার হাজার নিরীহ মানুষকে হত্যা করে।

১২ নভেম্বর শুক্রবার পাকিস্তানি বাহিনী এবং রাজাকার আলবদদের কিছু সদস্য জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলার মাহমুদপুর গ্রামে যাওয়ার পথে মাহিনমারা খালে মুক্তিযোদ্ধারা বাধা দেন। পাকিস্তানি সেনারা মুক্তিযোদ্ধাদের বাধা অতিক্রম করে মাহমুদপুর গ্রামে ঢুকে গণহত্যা ও অগ্নিসংযোগ চালাতে থাকে।

ফসলের মাঠে কাজ করা আবস্থায় আলতাফুরকে পাকিস্তানি সেনারা মুক্তিযোদ্ধা ভেবে গুলি করে হত্যা করে। মাহমুদপুরের রাস্তা দিয়ে আদবাড়িয়া গ্রামের আবেদ আলী কানা যাচ্ছিলেন। পাকিস্তানি সেনারা তাকে পথের ধারে গুলি করে হত্যা করে। পাকিস্তানি সেনাদের হাতে হত্যার শিকার হন মনি সরকার ও জামাল শেখ সহ অসংখ্য গ্রামবাসী। ঐদিন গণহত্যায় কতো জন শহিদ হয়েছিলেন তা কেউ বলতে পারেবেন না। ৪ জনের নাম পরিচয় ছাড়া বাকিদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

দুরন্ত ইসলাম

লেখক : অভিনয় ও কণ্ঠশিল্পী।

আপনার মতামত দিন