করোনা সচেতনতায় ৫০০ সাবান বিতরণ করল ডোমারের সেচ্ছাসেবকরা

জুঁই রায়

করোনা সচেতনতায় সচেতনমূলক লিফলেট বিতরণ, সাবান বিতরণ, মাস্ক বিতরণ, করোনা সচেতনতামূলক মাইকিং ও হত-দরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী সহ না কার্যক্রম করে যাচ্ছে ডোমারের সেচ্ছাসেবকেরা।
অন্যান্য দিনের মত আজ ২৮ মার্চ সকাল ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত সেচ্ছাসেবকেরা ৫০০ সাবান বিতরণ করে ডোমার উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ৯টি গ্রামে।

সেচ্ছাসেবকদের ভিতর রেজাউল ইসলাম বলে, আমি সহ আরেক জন সেচ্ছাসেবক নিয়ে বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের পূর্ব বোড়াগাড়ী গ্রামের প্রধান পাড়ায় সকালে আমরা ৮০টি পরিবারের সদস্যদের সাবান দিয়ে সচেতন হওয়ার জন্য অনুরোধ করেছি। কিভাবে হাত ধুতি হবে তাও যতদূর পারি ভালোভাবে বুঝানোর প্রচেষ্টা করেছি।

১২০টি সাবান বিতরণ হয়েছে সেচ্ছাসেবক দিপংকর কর্মকারের তত্ত্ববধায়নে। সে সাবান বিতরণ করে ৮ নং ডোমার ইউনিয়ন পরিষদের ছোটরাউতা আন্ধারুরমোড় গ্রামের ১ নং ও ২নং ওয়ার্ডের কিছু অংশে। দিপঙ্কর কর্মকার বলে, আমাদের ডোমার উপজেলার কমবেশি সম্পূর্ণ জায়গায়ই গ্রাম। গ্রামের অনেক মানুষ জানেই না কি করে করোনার বিরুদ্ধে সচেতন হতে হয়। গ্রামবাসীকে ভালোভাবে বুঝানোর প্রচেষ্টা করেছি আমরা। আশা করা যায় করোনা প্রতিরোধে এবার তারা সচেষ্ট হবে।

এছাড়াও সেচ্ছাসেবকেরা সাবান বিতরণ করেন পূর্ব বোড়াগাড়ী, লালার খামাত,
বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নওদাবসে। এসব এলাকা তত্ত্বাবধায়ন করেন সেচ্ছাসেবক মোঃ মোমিনুর রহমান ও বিশ্বজিৎ রায় সহ অন্যান্য সেচ্ছাসেবক।

সেচ্ছাসেবক রিপন রায় ডোমার উপজেলার ৭নং বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নয়ানী বাগডোকরা গ্রামের ৫ নং ওয়ার্ডের হরতকীতলায় করোনা সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য সাবান বিতরণ করে।

এছাড়াও সেচ্ছাসেবক জয় লালা ও মিঠুন রায় ডোমার উপজেলার বোড়াগাড়ী বাজার, আশ্রম পাড়া(জেলে পাড়া), সাত নং বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের দাস পাড়ায় সাবান বিতরণ করেন।

সেচ্ছাসেবকদের উপদেষ্টা রবীন্দ্র রায় বলেন, ‘গ্রামের দিকে বেশি সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। গ্রামের মানুষ এমনো আছে যারা যানেই না কি করে করোনার বিরুদ্ধে সচেতন হতে হবে। তাই আমরা গ্রামের মানুষদেরকে সচেতন করার চেষ্টা করছি। যারা খুবেই হত-দরিদ্র, কাজ করে দিন এনে দিনে খায় তাদের খাদ্য সামগ্রী দেওয়ার চেষ্টা করছি আমরা। আপনারা সবাই নিজ অবস্থান থেকে এগিয়ে আসুন; সবাই মিলে কাজ করলে করোনার বিরুদ্ধে আমাদের বিজয় সুনিশ্চিত।’

সেচ্ছাসেবকদের এমন কার্যক্রমে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন উপদেষ্টামন্ডলীর, সোনামোহন রায়, জামিনি কিশোর রায়, তপু রায়, মিজানূর রহমান সাগর ও সুলেমান আলী ।

এখন পর্যন্ত ডোমার উপজেলার সেচ্ছছাসেবকদের কার্যক্রমগুলো হলো:
১। ২৬টি হত-দরিদ্র পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ।
২। করোনা সচেতনতায় ৬০০ সাবান বিতরণ।
৩। করোনা সচেতনতায় ১,০০০ মাস্ক বিতরণ।
৪। করোনা সচেতনতায় ১৭,০০০ লিফলেট বিতরণ।
৫। ৭দিন ধরে দুটি ভ্যান মাইকে করোনা সচেতনতার মাইকিং।

আপনিও এ মহৎ কার্যক্রমে যুক্ত হতে পারেন। অর্থ পাঠাতে বা যুক্ত হতে চাইলে: ০১৭৬৪৭৮৪৭৮০