গল্প: অন্ধ পথিক

রবিউল হাসান রবি

ঠিক দ্বি প্রহরে  মনটা বিষণ্ণ করে মানববিহীন রাস্তায় আমি হাটছি আর ভাবছি জীবনটা শুধু ব্যর্থতায় পূর্ণ, কী পেলাম এই জীবনে আর কী দিলাম এই জীবনকে।এমনি এক অদ্ভুত চিন্তা আর কষ্ট ভরা মন নিয়ে হঠাৎ এক জনের সাথে ধাক্কা লেগে গেল । চেয়ে দেখি এক জন অন্ধ পথিক । মনটা তখন আরও ভারি হয়ে গেল । অন্ধ পথিকটা আমাকে বলছে ভাই আপনি কী ব্যথা পেলেন ? কথাটি বলেই রাস্তার ধারে গিয়ে বসল । ভাবলাম হয়ত অন্ধ পথিকটি ব্যথা পেয়েছে আমার ধাক্কায় । তবে লোকটার নম্র আচরনে আমার মনটা হালকা হয়ে গেল । আমি অন্ধ পথিক কে বললাম ভাই আমার অসাবধানতার কারণেই আপনার সাথে ধাক্কা লেগে গেল । আপনি কী ব্যথা পেলেন ? বলেই লোকটার পাশে গিয়ে বসে পরলাম অকারণেই । কিন্তু আমি কখনো এসব লোকদের পাশে গিয়ে বসতাম না সর্বদা নিজেকে নিয়ে অহংকারবোধ করতাম । কিন্তু আজ কেন গিয়ে বসে পরলাম তা নিজেও জানি না । অদ্ভুত এক মায়া অন্ধ পথিকটির পাশে বসতে বাধ্য করল আমায় ।অন্ধ পথিক আমাকে বলছে ….

না ভাই আমি ব্যথা পাইনি ক্লান্ত বলেই এখানে বসে পরলাম,অনেক দূর হেটেছি তো তাই আর কী ।ভাই আমি না হয় অন্ধ ছিলাম তাই আপনার সাথে ধাক্কা লেগে গেল এখন দেখি ভাই আপনি চোখ থাকিতেও অন্ধ ।
কথাটা বলেই লোকটা হাসছে ।লোকটা র অদ্ভুত রকমের হাসি দেখে আমিও না হেসে পারলাম না । লোকটার সাথে যতই সময় পার করছি ততই অদ্ভুত ভাবে আমার মনটা ভাল হয়ে যাচ্ছে । লোকটা হঠাৎ করেই আমাকে বলছে ভাই আপনি কী আমার কথায় কষ্ট পেলেন ? আমার মনে হয় আপনার মনটা খুব খারাপ হয়ে আছে তাই আপনি আমাকে দেখতে পাননি?
ভাবলাম লোকটা অন্ধ হলে কী হবে অন্যের মনটা দেখতে পায় ।
হুম আপনি ঠিক ধরতে পারছেন । তবে আপনি কীভাবে বুঝলেন যে আমার মন খারাপ ?
বুঝতে পারার একটাই কারণ অন্ধদেরও মন খারাপ থাকলে তারাও ঠিক ভাবে পথ বুঝতে পারে না। আপনার কী কারনে মন খারাপ যদি আমাকে বলতেন ?
অন্ধ পথিকের অদ্ভুত এক উত্তর শুনে আমি অবাক হয়ে গেলাম । যাই হোক লোকটা যে বুদ্ধিমান তা বুঝতে আর বাকী রইল না । আমি অকুতোভয়ে বলে ফেললাম আমার মনটা এই কারণেই খারাপ আমার ব্যর্থতা আজ আমায় কুড়ে কুড়ে খাচ্ছে, আমার সব মানসিক শক্তি নিয়ে নিয়েছে, কোন কিছু করার শক্তি আজ আর আমার মাঝে নেই ।আজ আমি তোমারি মত পথ হারা পথিক হয়ে গেছি । কথা গুলো বলছি আর গলার স্বরটা কেমন ভেঙ্গে যাচ্ছিল । বুঝতে পারছি মেঘ হবার পর যেমন বৃষ্টি হয় তেমনি আমারও মন ভারীর পর কান্না আসছে । দু ফোটা জল চোখ থেকে কখন যেন পরে গেল আমি বুঝতেই পারলাম না!কথাটা শেষ না করতেই অন্ধ পথিক আমাকে বলছে –
ভাই আপনি কী কাঁদছেন ? যদি আপনার সময় হয় আমি আপনাকে কিছু কথা বলব, সময় হবে কী আপনার ?
আমি স্বাভাবিক ভাবে বলে ফেললাম জী !সময় হবে আমার । অন্ধ লোকটি আমাকে বলছে –
আপনি কী জানেন একজন অন্ধ পথিকের গন্তব্যের রাস্তার সাথে মানুষের অদেখা ভবিষৎ একই রকম ।
কথা শোনে আমার চোখ কপালে উঠে গেল ।আমি অবাক দৃষ্টি দিয়ে একটা মুর্খের মত তাকিয়ে আছি অন্ধ পথিকের দিকে ।। অন্ধ লোকটি আবার বলা শুরু করল–
একজন অন্ধ পথিকের অপরিচিত পথ অচেনা ঠিক তেমনি প্রতেকটি মানুষের ভবিষৎ অচেনা কেউ জানে না তার ভবিষৎ । একজন অন্ধ পথিক কে যখন অপরিচিত পথ দিয়ে যখন তার সঠিক গন্তব্যস্থলে যায় তখন সেই অন্ধ পথিকটি অনেকবার ব্যর্থ হয়ে যায় । সে রাস্তায় বার বার পরে যায় তাই বলে সে সেখানে পরে থাকে না সে প্রতিবারেই তার গন্ত্যবস্থলে যাবার জন্য উঠে দাঁড়ায়়, সে বার বার পথ হারিয়ে ফেলে তাই বলে সে ওই ভুল পথেই হাঁটে না সে প্রতিবারেই ভুল পথ থেকে ফিরে আসে , ওই অন্ধ পথিকটি শতবার ব্যর্থ হবার পরেও সে তার লক্ষ্য থেকে ফিরে আসে না অনেক লোকের সহযোগিতা নিয়ে সে তার গন্তব্যস্থলে পৌছায় । এতটুকু বলে অন্ধ পথিকটি থামল ।
আমি মূর্খের মত সেই যে তাকিয়ে আছি অন্ধ পথিকের দিকে এবং এখনো তাকিয়ে আছি আর ভাবছি এই কথা গুলো কী আমাকে অন্ধ লোকটি বলছে নাকি আমি দ্বি প্রহরে কোন স্বপ্ন দেখছি।আমি তার কথায় এতই মুগ্ধ ছিলাম যে তার কথা থেমে যাওয়াতে আমার অসহ্য লাগছিল ।না পেরে অন্ধ পথিক কে বলেই ফেললাম থামলে কেন পথিক ভাই ? লোকটি আমার কথা শুনে আবার বলা শুরু করল-
এই যে অন্ধ পথিকটির পথ যেমন অচেনা ছিল ঠিক তেমনি মানুষের ভবিষৎ অচেনা । মানুষ যখন এই অচেনা ভবিষ্যতের রাস্তায় যখন কোন লক্ষ্য স্থির করে তখন সে অন্ধ পথিকের অচেনা রাস্তায় চলার মত বার বার ব্যর্থ হবে । কিন্তু সেই অন্ধ পথিকের মত অচেনা পথটিকে জয় করে নিতে হবে । জয় করে নিতে হবে ব্যর্থতাকে, জয় করে নিতে হবে মনের সকল হতাশাকে ।
অন্ধ পথিক কথাগুলো বলছে আর মনের ভিতরে কেমন যেন একটা শক্তি তৈরি হচ্ছে , মনে হচ্ছে আমি সব করতে পারব ।
কথা গুলো বলে লোকটি চোখ দিয়ে পানি ফেলে দিল আর আমাকে বলছে –
যারা অন্ধ তারাই এক মাত্র বুঝে এই অচেনা পথটা চলতে কতটা কষ্ট সাধ্য । তারাই জানে এই না দেখা পৃথিবী দেখতে কতই সুন্দর ।
অন্ধ পথিক কথাটি বলা শেষ না করতেই অন্ধ পথিক উঠে দাঁড়াতে চাইল আমি সাহায্য করলাম । উঠে আমাকে বলল ভাই আপনার সাথে আজ অনেক কথা হল এখন যে আমাকে যেতে হবে আমার গন্তব্যস্থলে । বলেই অন্ধ পথিকটি যাত্রা শুরু করল।আমি একবারের জন্য ফিরাতে পারলাম না । লোকটি ঝড়ের মত এসে আবার ঝড়ের মত চলে গেল ।
সত্যিই তো এই পৃথিবীর অন্ধ পথিকরাই আমাদের প্রেরণা । এই মানুষরা কত কষ্ট করে পথ চলে । এই পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন কাজ অন্ধরাই করে থাকে । সত্যি এটাই যে,এই পৃথিবীর প্রতেক মানুষের কাছে প্রতিভা রয়েছে সেই প্রতিভাটা নিজের মধ্যে থেকে নিজেকেই বের করে নিতে হবে ।
সেই অন্ধ পথিকের দেয়া অদ্ভুত শক্তি নিয়ে ,অনেক কিছু জয় করার লক্ষ্য নিয়ে আমি রওনা হলাম ।শতবার ব্যর্থ হলে শতবার চেষ্টার শক্তি নিয়ে আমি এই পথ চললাম …….

আপনার মতামত দিন