চট্টগ্রাম বইমেলায় ব্যতিক্রমী মানবিক স্টল

মুজিবুল হক, চট্টগ্রাম
বইমেলায় বলতে সাধারণত বইয়ের দোকান হওয়ার কথা। কিন্তু যারা বইমেলায় আসবেন, বই কিনবেন নাড়াছাড়া করে দেখবেন তারা হাতে এককাপ কফি নিয়ে বই নিয়ে আড্ডা জমাবেন না তা কি করে হয়?
চট্টগ্রাম বইমেলায় চারটি খাবারের স্টল রয়েছে, যেগুলো মূলত ব্যবসায়িক উদ্যেশ্যকে সামনে রেখে দেওয়া। এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম মানবিকের স্টল। বইমেলায় খাবারের স্টল নিয়ে সদস্যরা প্রত্যেকে নিজের বাসার খাবার তৈরী করে এনে স্টলে বিক্রি করে। এখানের বিক্রিত পুরো টাকাটা মানবিক পাঠশালার শিশুদের শিক্ষা কার্যক্রমে ব্যয় করা হয়। সাধারণত স্টলে ছোলা মুড়ি, বিভিন্ন রকম দেশীয় পিঠা, ডোনাট, পিজা, রোল, নারকেলের নাড়ু, কাবাব ইত্যাদি বিক্রি হয়। স্টলে যারা বিক্রি করে তারা প্রত্যেকে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল, স্কুল-কলেজে পড়ুয়া, চাকরীজীবি, ব্যবসায়ী যারা মানবিকের সদস্য।
‘চলো সবাইকে নিয়ে বাঁচি’ শ্লোগানে বিশ্বাসী মানবিক আর্ত-মানবতার সেবায় নিয়োজিত সংগঠন।


কথা প্রসঙ্গে মানবিকের প্রতিষ্ঠাতা জয়িতা হোসাইন নিলু জানান মানবিক মূলতঃ সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষা কার্যক্রম নিয়ে কাজ করে। এছাড়া শীতবস্ত্র বিতরণ, ঈদবস্ত্র বিতরণ, পূজায় বস্ত্র বিতরণ, মেধাবী গরীব শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ ও তাদের শিক্ষা কার্যক্রমে সহায়তা করা, ফ্রী চিকীৎসা ক্যাম্প, ফ্রী ব্লাড গ্রুপিং, রক্তদাতা সংগ্রহ করে দেয়া, গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের দুরারোগ্য ব্যধি হলে চিকীৎসায় সহায়তা করা, সচেতনা বৃদ্ধিতে ফ্রী ফ্রাই ডে স্কুল, কর্ম দক্ষতা বৃদ্ধিতে সুবিধাবঞ্চিতদের বিভিন্ন হাতের কাজ শেখানো।

মানবিকের তিনটি স্যাটেলাইট স্কুল আছে যেখানে প্রায় ১২০ জন সু্বিধাবঞ্চিত শিশু পড়াশুনা করে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত। মানবিকের সহায়তা সরকারি স্কুলে ৫ম/৬ষ্ট/৭ম শ্রেণীতে অধ্যয়ন করছে অাট জন শিশু । মানবিক পাঠশালা আছে দক্ষিণ চট্টগ্রামের কাট্টলী সাগরপাড়, মুরাদপুর ভরা পুকুরপাড় ও চাঁদগাও শমসের পাড়ার ‘মাসুদ স্মৃতি সংসদের ক্লাবে অবস্থিত।মানবিকে বর্তমানে প্রায় ৬০ জন সক্রিয় কর্মী। প্রত্যেকের চাঁদা ও বিভিন্ন ইভেন্টে শুভাকাঙ্ক্ষীদের অংশগ্রহণে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালিত হয়। যেহেতু মানবিক তিনটি স্কুল চালায় সেহেতু শিক্ষক সম্মানী ও স্কুল ঘর ভাড়া বাবদ ফান্ড প্রয়োজন হয় এছাড়া মানবিকের সদস্যদের ও মানবিক পাঠশালার শিশুদের তৈরী বিভিন্ন হাতের তৈরী জিনিস বিক্রি করেও ফান্ড সংগ্রহ করা হয়।

ফেইসবুকে মানবিকের “মানবিক ফাউন্ডেশন” নামে একটা পেইজ, মানবিক নামে গ্রুপ আছে। মানবিক প্রতি সপ্তাহে ‘মানবিক আড্ডা’ র আয়োজন করে। সেখানে পর পর চার সপ্তাহ উপস্হিতি নিশ্চিত করার মাধ্যমে মানবিকের সদস্য হওয়া যায়। মানবিকের প্রতিষ্ঠাতা জয়িতা হোসাইন নিলু জানান ভবিষ্যতে দক্ষ শ্রমিক তৈরীতে কারিগরী স্কুল খোলার ইচ্ছে।এছাড়া অটিজম নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধিতে কার্যক্রম পরিকল্পনা রয়েছে মানবিকের।