তরুণ সাংবাদিকের অনুসন্ধানী প্রতিবেদন ও তার বাজার উপযোগীতা

মুজিবুল হক

একজন জিজ্ঞাসু মনন নিয়ে এগুনো চরিত্রটিকে আমি অনুসন্ধানী সাংবাদিক এবং চরিত্রের ফলাফলকে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন বলছি।কাজের ক্ষেত্র এবং তাঁর জানার জায়গা থেকে ফলাফল প্রকাশের জন্য চরিত্রটির বিভিন্ন উৎসের প্রয়োজন হয়।উৎসের সন্ধান বা ক্ষেত্র সে প্রতিনিধিত্বকারী গণমাধ্যমটির মালিক বা উৎসের সাথে জড়িত কোন চরিত্র হতে পারে। প্রায়শই দেখা যায় বেশিরভাগ মিডিয়ার মালিক বা তত্বাবধানকারী বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ব্যক্তিবর্গ বা প্রভাবশালী কোন চরিত্র।অনুসন্ধানী প্রতিবেদন যদি রাজনৈতিক ক্ষেত্রে হয় বা চরিত্র যদি তাঁর দাঁড় করানো ফলাফল রাজনৈতিক অবস্থানকে নাড়া দেয় বিপত্তি বাঁধে সেখানে।সৃজনশীলতার সমন্বয়ে তৈরী করা প্রতিবেদনটির পোস্ট মডেম হয়ে যায় উর্ধতনের হস্তক্ষেপে,আর প্রাণ হারায় তরুণ চরিত্রটি।গণমাধ্যমে বিট নির্ধারণ করা থাকে।বিটের আওতায় কাজ হয়,তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা হয় একটি প্রতিবেদন তৈরীর জন্য,তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহের পর প্রতিবেদন যায় এডিটর এর ডেস্ক এ,অনুসন্ধানী প্রতিবেদন রাজনৈতিক অবস্থানকে নাড়া দিলে প্রথম বিপত্তি আসে এ ডেস্ক থেকে এর পর মালিকের জায়গা থেকে,প্রান হারায় তরুণ চরিত্রটি।সাংবাদিকতা একটি সৃষ্টিশীল পেশা,এখানে একজন সংবাদকর্মী একজন দর্জি, শব্দ তাঁর উপকরণ,শব্দ দিয়ে শব্দসেলায় করার একটি জায়গা সাংবাদিকতা।সংবাদমাধ্যমটি কতটুকু জনপ্রিয় বা পাঠকপ্রিয় এটি সংবাদপ্রকাশ এর ধরণ ও সাবলীলতা এবং ঐতিহ্যগত প্রেক্ষাপট এই দুটো বিষয় কাজ করে,ঐতিহ্যগত প্রক্ষাপটের ভিত্তিতে চলমান একটি সংবাদমাধ্যমে যখন সৃজনশীল ও অনুসন্ধানী সমন্বয় করা যায় তখন এটির জনপ্রিয়তা বা পাঠকপ্রিয়তা রোধ করার অন্ত থাকে না।সাথে তরুণ চরিত্রটিও কাজ করার স্পৃহা পায়,কাজে আনন্দ বাড়ে,গতি বাড়ে।এরকম বহু ঘটনা আছে এরকম বিভিন্ন প্রতিবেদনের কারণে পুরোপুরি গণমাধ্যম ছাড়তে হয়েছে বা বর্তমান কর্মস্থল ছাড়তে হয়েছে।এই ধারা রোধ করা যাবে কিনা জানা নেই।তবে এক প্রশ্নের ত একটি উত্তর না ভিন্ন ভিন্ন উত্তরও থাকতে পারে এই ধারণাটি গণমাধ্যম মালিকদের জানাশোনার গন্ডিতে থাকা উচিত।তরুণ চরিত্রটি কাজে স্পৃহা পাক,গতি বাড়াক,জরাজীর্ণ অবস্থা ফেলে,ময়লার স্তুপ পেড়িয়ে সে স্বচ্ছ একটি প্রতিবেদন লিখুক,তাঁর সেই সক্ষমতা হউক।

মুজিবুল হক, চট্টগ্রাম।