বড় হয়ে আমি পাইলট হতে চাই : শান

`আদিব আহমেদ শান, শোনায় মধুর গান।’
নাহ, শুধু মধুর গান-ই শোনায় না, অভিনয় ও মডেলিংয়েও দারুণ পারদর্শী শান। বয়স মাত্র ১০ বছর। অথচ অল্প বয়সেই সে যতগুলো বিজ্ঞাপনে কাজ করেছে তার সংখ্যা শুনে আমিই থ হয়ে গেছি। হ্যাঁ, আদিব আহমেদ শান এ পর্যন্ত ১৫০ টিরও বেশি বিজ্ঞাপনে কাজ করেছে। বিজ্ঞাপনগুলোর মধ্যে সুপারস্টার লাইট, টয় ময় ওয়েফার, চপস্টিক নুডলস, ম্যাগি স্বাদে ম্যাজিক, স্যাভলন সোপ, রেড কাউ মাস্টার, জিহান মিল্ক, প্রাণ আইস ললি, প্রাণ জেলি, ভিশন কমফোর্টার, এলজি ফ্রিজ, ওয়ালটন ফ্রিজ, ইয়ামাহা হোন্ডা, প্রাণ রোবো ড্রিংকস, আরএফএল বোল, প্রাণ পটেটো চিপস, রাঁধুনী গুঁড়া মসলা, ড্যান কেক, মুন্নু সিরামিক, দারাজ, পুষ্টি তেল, এআইবিএল ব্যাংক, পান্ডা আইসক্রিম, আরএফএল টিফিন বক্স, নেক্সট চকোলেট, লেয়ার কেক উল্লেখযোগ্য।
শুধু বিজ্ঞাপন নয়, সে অভিনয় করেছে ৫টি নাটক ও ১টি সিনেমাতেও। ফটোশ্যুট করেছে সেইলর, আড়ং, মোমেন্টস, এইচ এন এম, শৈশব, লারিভ, ইয়োলো, রাইজ, বেবি টেক্স আরও অনেক প্রতিষ্ঠানের।
বরাবরের মতো এবারও তোমাদের তারকা বন্ধুর সাক্ষাতকারটি গ্রহণ করেছেন টিন এবং ইয়ুথ প্লাটফর্ম পরিচয়’র ইয়ুথ কো-অর্ডিনেটর, শিশুসাহিত্যিক তুফান মাজহার খান-

জিহান দুধের বিজ্ঞাপনের স্যুটিং সেটে অভিনেত্রী মৌসুমীর সাথে শান

পরিচয়: কেমন আছো শান?
শান: আলহামদুলিল্লাহ, ভালো আছি। আপনি কেমন আছেন?

পরিচয়: হ্যাঁ, আমিও ভালো। তা তোমার বয়স যেন কত চলছে?
শান: আমার বয়স ১০ বছর।

পরিচয়: বাহ্! দশেই তো অনেক যশ দেখছি। অল্প বয়সেই তো তোমার অনেক যশ মানে সুনাম, সুখ্যাতি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়েছে।
শান: হ্যাঁ কিছুটা। আমি মনে করি চেষ্টা করলে মানুষ তার আশা পূর্ণ করতে পারে। আমার আশা ছিল আমি অভিনয় করে মানুষের মন জয় করব এবং দেশকে ভালো কিছু দেব। আর সে আশা পূরণ করার লক্ষ্যেই এগিয়ে যাচ্ছি।

পরিচয়: বাহ্ বেশ! খুবই সুন্দর কথা। একদম গোছানো, পরিপাটি। তা তুমি এখন কোন ক্লাসে পড়ছো?
শান: আমি বিএএফ শাহীন স্কুল এন্ড কলেজে ক্লাস ফোরে পড়ি।

পরিচয়: এ পর্যন্ত কতগুলো নাটক/টিভিসি/ওভিসি/মডেলিং করেছো?
শান: এ পযর্ন্ত ৫টা নাটক এবং ১টা ফিল্মে কাজ করেছি। টিভিসি/ওভিসি মিলিয়ে প্রায় ১৫০ টার মতো আর মডেলিং তো অনেক করেছি।

পরিচয়: ওহ্ মাই গড! সত্যি যত শুনছি ততই অবাক হচ্ছি। তুমি এত অল্প বয়সে এতগুলো কাজ কীভাবে করতে পারলে?
উত্তর: ইচ্ছাশক্তিই আসলে বড় শক্তি। এছাড়া আমার বাবা-মার অনুপ্রেরণা, আমার আগ্রহ আর ভালো লাগার কারণেই আসলে এ কাজগুলো সম্ভব হয়েছে।

পরিচয়: অসাধারণ! তোমার অনুপ্রেরণা দানকারী কে?
শান: বাবা-মা।

পরিচয়: এবার বলো, প্রথম কার মাধ্যমে কাজে প্রবেশ করেছিলে?
শান: বাবার মাধ্যমে।

পরিচয়: তাই নাকি? তাহলে তো বেশ! তিনি কী মিডিয়ার সাথে যুক্ত?
শান: না, ঠিক সেভাবে না। আমার বাবা একটা ব্যান্ডের সাথে অাছে, নাগরিক ব্যান্ড। তবে বাবার অনেক বন্ধু ও পরিচিত মানুষ মিডিয়াতে আছে। সেভাবেই আসলে…

পরিচয়: ভেরি গুড। লেখাপড়া এবং কাজ, দুটো সামলাতে হিমশিম খেতে হয়?
শান: লেখাপড়া আর কাজ এ দুটোই একটা রুটিনের মাধ্যমে করতে হয়। তা না হলে একটু ব্যাঘাত ঘটে। তবে আল্লাহর রহমতে আমার কোনো সমস্যা হয় না। এডজাস্ট করে নিই আরকি।

পরিচয়: সুপার, তা বর্তমান করোনাকালে কীভাবে সময় কাটাচ্ছো?
শান: বর্তমানে কোভিড-১৯ এর জন্য সবাই আমরা ঘরে অবস্থান করছি। আমি লেখাপড়ার পাশাপাশি টিভি দেখি, গেমস খেলি, মুভি দেখি আর আমার তন্ময় এবং রায়েদ নামের দুজন কাজিন আছে, তাদের সাথে খেলাধুলা করি।

পরিচয়: বাহ্! তা স্কুলে তোমার কতজন বন্ধু আছে আর তাদের মিস করো কি?
শান: স্কুলে আমার অনেক বন্ধু আছে। হ্যাঁ, তাদের আমি অনেক মিস করি।

পরিচয়: হুম, তো তো করারই কথা। তোমার প্রিয় ব্যক্তি কে?
শান: আমার মা।

পরিচয়: বেশ ভালো, তোমার প্রিয় জায়গা কোনটি?
শান: আমার প্রিয় জায়গা কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত।

পরিচয়: বাহ্! আমারও কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত সবচেয়ে প্রিয়। তবে সেখানে এখন পর্যন্ত একবারই যাওয়ার সুযোগ হয়েছে। আচ্ছা, তোমার প্রিয় খাবার কোনটি?
শান: বার্গার আর চিকেন ফ্রাই।

টয় ময় ওয়েফার বিজ্ঞাপনের  স্যুটিংয়ের ফাঁকে শান

পরিচয়: ভালো। তবে এগুলো খুব পরিমিত খাওয়া ভালো। বেশি খেলে স্বাস্থ্যের ক্ষতি হয়।
শান: হুম জানি। তাই আমি খুব বেশি খাই না। মাঝে মাঝে খাই।

পরিচয়: তা ভালো। আচ্ছা, অবসরে তোমার কী করতে ভালো লাগে?
শান: অবসরে আমার গেমস খেলতে অনেক ভালো লাগে।

পরিচয়: সাগর, নদী, পাহাড় কোনটি তোমার ভালো লাগে?
শান: সাগর আর পাহাড়।

পরিচয়: চমৎকার! বড় হয়ে তোমার যদি মানুষের জন্য কোনো ভালো কিছু করার সুযোগ হয়, তাহলে তুমি কী করতে চাও?
শান: বড় হয়ে যদি আমি সুযোগ পাই তবে মানুষের সেবা করতে চাই।

পরিচয়: মানুষের সেবা তো অনেকভাবেই করা যায়। তুমি আসলে বেসিকালি কোন কাজটির মাধ্যমে মানুষের সেবা করতে চাও?
শান: সেটা যেকোনোভাবেই হতে পারে। আমি ফিক্সড করিনি। তবে আমার ইচ্ছে আছে, মানুষদের জন্য ভালো কিছু করার।

পরিচয়: আচ্ছা, বেশ ভালো। আর বড় হয়ে কী হতে চাও?
শান: বড় হয়ে আমি পাইলট হতে চাই।

পরিচয়: গুড। তবে জুয়েনা আপুর একটা ভিডিও প্রোগ্রামে শুনেছিলাম, ভবিষ্যতে তোমাকে নাকি আমরা একজন নায়ক হিসেবে পাব। আর সেটা তুমিই বলেছিলে। তা এখন বললে পাইলট হতে চাও। তা দুটো প্রফেশন কি একসাথে করা যাবে?
শান: হ্যাঁ অবশ্যই যাবে, ডা. এজাজ স্যারকে দেখেন না? তিনি একসাথে কেমন ডাক্তারি এবং অভিনয় দুটোকেই সমানতালে চালিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। আর দুটো সেক্টরেই তিনি সফল। আমি মনে করি মানুষের ইচ্ছাশক্তি দৃঢ় থাকলে সে দুটো নয়, অনেকগুলো কাজই একসাথে করা সম্ভব।

টেস্ট মি বিজ্ঞাপনের  স্যুটিংয়ে শান

পরিচয়: সত্যিই চমৎকার একটি ব্যাখ্যা পেলাম তোমার কাছ থেকে। তোমার কথা শুনে মনে হচ্ছে মানসিকভাবে আমি তোমার চেয়ে অনেক পিছিয়ে আছি। আমার একটি কাজ করলে মনে হয় আরেকটি কীভাবে করব? মনোবল হারিয়ে ফেলি। এখন মনে হচ্ছে এই ছোট্ট তোমার কাছ থেকে আমি অনেক অনুপ্রেরণা আর সাহস পেলাম। সত্যিই তুমি অনেক বড় হবে।
শান: জি, দোয়া করবেন।

পরিচয়: অবশ্যই দুয়া করব। পরিচয়’কে সময় দেওয়ার জন্য তোমাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং ভালোবাসা।
শান: আপনাকেও ধন্যবাদ, পরিচয়কেও ধন্যবাদ। আর পরিচয়ের যত পাঠক ও ছোট্ট বন্ধু আছে তাদেরকেও অনেক ধন্যবাদ।

আপনার মতামত দিন