রিজভী ও একটি ছবির বিব্রতকর অপ্রকাশিত গল্প

পরিচয় ডেস্ক
রেজাউর রহমান রিজভী একাধারে সাহিত্যিক, সাংবাদিক ও গীতিকার। তারই একটি বিব্রতকর কিন্তু মজার ঘটনা সম্প্রতি তিনি শেয়ার করেছেন। ঘটনাটি পরিচয়ের বন্ধুদের জন্য তুলে ধরা হলো-

২০১৩ সালের কথা। দিনটা বোধকরি ছিল ৩০ জুন। সেদিন Bangladesh Sports Journalists Association এর আয়োজনে মিডিয়া কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে মানবকণ্ঠের সঙ্গে ঢাকা ট্রিবিউনের খেলা ছিল। ঢাকা ট্রিবিউনের যাত্রা শুরু হয় সে বছরেরই ১৯ এপ্রিল। ফলে এই পত্রিকায় কর্মরত অনেককেই আমরা তেমন চিনতাম না।
আমাদের দলের সবাই-ই ছিল পুরোপুরি ফুটবল খেলার চর্চা থেকে দীর্ঘদিন বিচ্ছিন্ন। কিন্তু ঢাকা ট্রিবিউনের সকলেই নাকি নিয়মিত চর্চা করেই মাঠে নেমেছিলো বলে শুনেছিলাম। ফলে সে খেলাতে ২-০ গোলে আমরা হেরে যাই। বিশেষ করে ঢাকা ট্রিবিউনের গোলরক্ষক ছিলেন রীতিমতো দুর্ভেদ্য। আর আমি ছিলাম মানবকণ্ঠের গোলরক্ষক। ঢাকা ট্রিবিউনের খেলোয়াড়রা পুরোটা সময় যেন আমার সামনেই খেলেছেন! রীতিমতো দৌড়ের উপর রেখেছিলেন আমাকে। ভাগ্য সহায় ছিল বলেই হয়তো বেশ কিছু গোল সেভ করতে পেরেছিলাম। নইলে খেলার ফলাফল ইতিহাসেও ঠাঁয় পেতে পারতো!
যাই হোক, খেলা শেষে যখন স্টেজে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার দেয়া হচ্ছিলো তখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন মানবকণ্ঠের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আবু বকর চৌধুরী, জাতীয় ফুটবল দলের খেলোয়াড় এমিলি ও মামুনুল সহ অন্যান্য অতিথিরা। কিন্তু আমরা লক্ষ করলাম প্রতিপক্ষ দলের গোলরক্ষক দেখি স্টেজে। এমনিতেই ম্যাচ হেরে তাদের (ঢাকা ট্রিবিউনের) উপর আমরা ক্ষ্যাপা। তার উপর স্টেজে তাদের গোলরক্ষক! এটা দেখে আমাদের টিমের কয়েকজন আমাকে বলে উঠলো, “আপনি স্টেজে যান না কেন, দেখেন না ওদের গোলকিপার স্টেজে গেছে। আপনিও যান।”
এরপর বলা যায়, আমাকে এক প্রকার ঠেলেই স্টেজে পাঠানো হলো। কিন্তু স্টেজে যাবার কিছুক্ষণ পর বুঝলাম, কি বড় বোকামীই না করে ফেলেছি। কারণ প্রতিপক্ষ দলের গোলরক্ষক ছিলেন ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহান। স্টেজে তিনি প্রতিপক্ষ দলের গোলরক্ষক হিসেবে আসেননি, তিনি এসেছিলেন ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক হিসেবে! স্বয়ং সম্পাদক যে গোলরক্ষক হিসেবে খেলেছেন সেটা কি আর তখন ধারণা করেছিলাম?
তখন মনে হচ্ছিলো, ধরণী এখন ভাগ হলে আমি তার ভেতরে ঢুকে গেলে হতো। কি যে এক বিব্রতকর সেই মুহূর্ত তা আর বলে বোঝানো যাবে না! আর তখনই ছবিটি তুলেছিলেন মানবকণ্ঠের চিফ ফটো সাংবাদিক সালাউদ্দিন টিটো ভাই।

আপনার মতামত দিন