শাবনূর ম্যাম ও সালমান শাহ স্যারের অভিনয় দেখে অনুপ্রাণিত হই : মূসকান

 

বর্তমানে টেলিভিশনের পর্দায় বেশ পরিচিত শিশুশিল্পী আমিরা নূর মূসকান। নিজের অভিনয়দক্ষতা আর মিষ্টি হাসির মাধ্যমে এরই মধ্যে জায়গা করে নিয়েছে দর্শকদের মনে। দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পেরেছে টেলিমিডিয়ার নামিদামি পরিচালক ও প্রযোজকদের। কাজ করেছে ১০টি নাটক, ৫টি সিনেমা ও ৫০টি বিজ্ঞাপনে। ছোট্ট এবং মিষ্টি এই শিশুশিল্পীর কথা জানাব আজ। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন পরিচয় এর ইয়ুথ কো-অর্ডিনেটর তুফান মাজহার খান

পরিচয়: ছোট্ট করে তোমার পরিচয়টা দাও।
মূসকান: আমার নাম আমিরা নূর মূসকান। আমার বয়স ১০ বছর। আমি পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ছি। আমি একজন শিশু অভিনেত্রী এবং মডেল।

পরিচয়: টেলিভিশনে এ পর্যন্ত কতগুলো কাজ করেছ এবং সেগুলো কী কী?
মূসকান: ১০টির মতো নাটকে অভিনয় করেছি। তার মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি নাটক হলো খল নায়ক, বোকা ভূত এবং মাফিয়া। বিজ্ঞাপনে কাজ করেছি প্রায় ৫০টির মতো। সেগুলোর উল্লেখযোগ্য কিছু কাজ হলো গ্রামীণফোন, পেপসোডেন্ট টুথপেস্ট, ডানো মিল্ক, ফ্রেশ মিল্ক, রবি, সার্ফ এক্সেল, প্রাণ আচার, পিওর খাঁটি সরিষার তেল, টি টাইম বিস্কুট, টেস্ট মি স্যালাইন, নেসলে ইত্যাদি। এছাড়াও ডেঙ্গু নিয়ে একটা বিজ্ঞাপন করেছিলাম। আরও অনেক বিজ্ঞাপনে কাজ করেছি। ফটোশুট করেছি ইয়েলো এবং এলোন ব্র্যান্ডের।

পরিচয়: কোনো সিনেমায় কী কাজ করেছ বা করার ইচ্ছে আছে?
মূসকান: ও হ্যাঁ, আমি ৫টি সিনেমাতেও কাজ করেছি। সেগুলো হলো মন বসেছে পড়ার টেবিলে , কলিজাতে দাগ লেগেছে, তুই ছাড়া শূন্য এ জীবন, প্রেমে অনেক জ্বালা এবং পাসওয়ার্ড।

পরিচয়: মিডিয়ার কাজে তোমাকে বেশি অনুপ্রেরণা দেয় কে এবং কার মাধ্যমে প্রথম মিডিয়াতে পা রেখেছিলে? অভিনয়ের প্রথম দিনের কিছু অভিজ্ঞতা বলো।
মূসকান: মিডিয়ার কাজে আমাকে বেশি অনুপ্রেরণা দেয় আমার মা। আর আমি প্রথম প্রযোজক মোস্তাফিজুর রহমান আঙ্কেলের সিনেমাতে কাজ করেছিলাম। প্রথম দিনের অভিনয়ে আমি এবং একটি ছেলে বর-বউ খেলছিলাম এবং সেখানে আমি বাল্যবধু সেজে বসে ছিলাম। তখন আমি একটু ভয় পেয়েছিলাম। কারণ এর আগে আমি কখনও শুটিং করিনি এবং আমি গরমে প্রচণ্ড ঘামতে শুরু করেছিলাম। আর যখন সবার সঙ্গে কথা হয় এবং পরিচিত হয়ে যাই তখন থেকে খুব ভালো লেগেছে।

পরিচয়: লেখাপড়া এবং কাজ একসাথে সামলাতে হিমশিম খেতে হয়? আর বর্তমান করোনাকালে কীভাবে সময় কাটাচ্ছ?
মূসকান: লেখাপড়া করার সময় লেখাপড়া করি আর যখন শুটিংয়ের কাজ থাকে তখন শুটিং করি। এতে তেমন কোনো সমস্যায় পড়তে হয়নি এখন পর্যন্ত। আর করোনাকালীন সময়ে বাইরে যাওয়া হয় না। তাই ঘরে বসে অনলাইনে ক্লাস করি, টিভিতে কার্টুন দেখি এবং গেইম খেলি।

পরিচয়: তোমার প্রিয় বন্ধুর (বেস্ট ফ্রেন্ড) নাম কী এবং কেন সে প্রিয়?
মূসকান: আমার প্রিয় বন্ধুর নাম শায়ান মির্জা। সেও একজন শিশু অভিনেতা এবং মডেল। তার সঙ্গে আমি অনেকগুলো কাজ করেছি। তাকে আমার অনেক ভালো লাগে।

পরিচয়: তোমার প্রিয় জায়গা এবং প্রিয় খাবার কোনটি এবং কেন সেগুলো প্রিয়?
মূসকান: আমার প্রিয় জায়গা কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত। কারণ সেই জায়গাটি খুব সুন্দর। সেখানকার আবহাওয়া ও সমুদ্রের ঢেউ আমার ভীষণ ভালো লাগে। আর আমার প্রিয় খাবার আইসক্রিম ও চকলেট এবং মায়ে হাতে রান্না করা পোলাও আর মাংস। সবগুলো খাবারই খেতে খুব সুস্বাদু, আর তাই এগুলো আমার এত পছন্দ।

পরিচয়: অবসরে কী কর? পাঠ্যবইয়ের বাইরে কোন ধরণের বই পড়তে ভালো লাগে?
মূসকান: অবসরে আমার ড্রয়িং করতে এবং বোনের সঙ্গে খেলাধুলা করতে ভালো লাগে। পাঠ্য বইয়ের বাইরে আমার গল্পের বই পড়তে খুবই ভালো লাগে।

পরিচয়: বড় হয়ে তোমার যদি মানুষের জন্য কোনো ভালো কিছু করার সুযোগ হয় তাহলে তুমি কী করতে চাও?
মূসকান: বড় হয়ে আমার যদি মানুষের জন্য ভালো কিছু করার সুযোগ হয় তাহলে আমি গরীব-দুঃখীদের পাশে থেকে তাদের খাদ্যের অভাব দূর করতে চাই এবং আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে পাশে দাঁড়াতে চাই।

পরিচয়: যদি আলাদিনের চেরাগ পেয়ে যেতে তাহলে চেরাগের দৈত্যের কাছে কী চাইতে?
মূসকান: যদি আলাদিনের চেরাগ পেয়ে যেতাম তাহলে চেরাগের দৈত্যের কাছে সকল ধরনের মহামারি থেকে পৃথিবী যাতে মুক্ত থাকে এবং মানুষ যেন সুস্থ-স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারে।

পরিচয়: বড় হয়ে পেশা হিসেবে কোনটিকে বেছে নিতে চাও এবং কেন?
মূসকান: পুলিশ। কারণ এতে করে মানুষকে খুব কাছে থেকে সেবা দিতে পারব এবং অন্যায়, অপরাধ দূরীকরণে অবদান রাখতে পারব।

পরিচয়: টিভিতে কাজ করায় তোমার বন্ধুদের প্রতিক্রিয়া কী? তারা তোমার সাথে কেমন আচরণ করে?
মূসকান: তাদের প্রতিক্রিয়া অনেক ভালো। তারা আমার সাথে খুবই ভালো আচরণ করে। তারা যখন টিভিতে আমার অভিনয় দেখেছে সেটা বলে এবং অভিনয়ের নানা কথা জিজ্ঞেস করে তখন আমার ভালো লাগে।

পরিচয়: টিভিতে যখন নিজেকে দেখো তখন কেমন লাগে?
মূসকান: খুবই ভালো লাগে। ভাবলে অবিশ্বাস্য লাগে যে এটা আমিই।

পরিচয়: অভিনয়ের খাতিরে নিজের মা-বাবা ছেড়ে অন্যদের মা-বাবা ডাকতে কেমন লাগে?
মূসকান: অভিনয়ের খাতিরে নিজের মা-বাবা ছেড়ে অন্যদের মা-বাবা ডাকতে খুব ভালো লাগে। কারণ আমি তখন আদর অনেক বেশি পাই।

পরিচয়: কার অভিনয় দেখে অনুপ্রাণিত হও বা বড় হয়ে কার মতো অভিনেতা হতে চাও?
মূসকান: শাবনূর ম্যাম ও সালমান শাহ স্যারের অভিনয় দেখে অনুপ্রাণিত হই।

পরিচয়: শুটিং এর মজার ঘটনা বলো যা মনে পড়লে হাসি পায়।
মূসকান: বোকাভূত নাটকে আমি খুব ভালো করে ডায়লগ দিয়েছিলাম যার জন্য ডিরেক্টর আংকেল (অনিমেষ আইচ) আমাকে বারবার ‘তোতাপাখি’ ‘তোতাপাখি’ বলে ডাকত। সেটা মনে পড়লে এখনও আমার হাসি পায়।

পরিচয়: যদি কোন গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করে থাক তাহলে সেটি কোনটি? ওই চরিত্রে অভিনয় করতে কেমন লেগেছে?
মূসকান: অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয়ে করেছি। তার মধ্যে ‘মাফিয়া’ নাটকে আমার একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র ছিল। এই নাটকে আমি জাহিদ হাসান আঙ্কেলের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছি। আমি একটু ভয়ে ছিলাম কারণ ডিরেক্টর আঙ্কেল বলেছেন, খুব ভালোভাবে ডায়লগ দিতে। তা না হলে জাহিদ হাসান আঙ্কেল রাগ করতে পারে। কিন্তু অবশেষে আমি ডায়ালগ ভালোভাবে দিতে পেরেছিলাম। যার জন্য জাহিদ হাসান আঙ্কেল এবং ডিরেক্টর আঙ্কেল আমার প্রতি খুব খুশি হন।

পরিচয়: পরিচয়কে সময় দেওয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ।
মূসকান: আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ।

আপনার মতামত দিন