সবার পাঠশালা কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

 গোপাল রায়, নীলফামারী থেকে:

নীলফামারী জেলা ডোমার উপজেলার ৫ জন কৃতি মেডিকেল শিক্ষার্থীদের সংবর্ধণা দেন ‘সবার পাঠশালা’। করোনা পরিস্থিতিকে বিবেচনায় রেখে ঘরেয়াভাবে ১৮ই মে ডোমার সরকারি কলেজের মাঠ প্রাঙ্গনে এ কৃতি সংবর্ধণা দেওয়া হয়।

সংবর্ধিত কৃতি শিক্ষার্থীরা হলেন,
খুলনা মেডিকেল কলেজে চান্স প্রাপ্ত ফারিয়া আহম্মেদ, রাজশাহী মেডিকেল কলেজে চান্স প্রাপ্ত আবুল বাসার ফরহাদ, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ চান্স প্রাপ্ত সুমাইয়া রাফা, শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে চান্স প্রাপ্ত মোঃ আমিনুল ইসলাম ও শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজে চান্স প্রাপ্ত মো জোনায়েদ আল হাবিব।

‘সবার পাঠশালা কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা-২০২১’ ঘরোয়া অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নীলফামারী সরকারী কলেজের প্রভাষক জনাব মোঃ সুলাইমান আলী ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাগডোকরা নিমোজখানা স্কুল এন্ড কলেজের প্রভাষক তপু রায়। অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী অরবিন্দু কুমার রায়।
সঞ্চালনা ও পরিচালনা করেন জয় লালা ও পারুল আক্তার।
সার্বিক সেচ্ছাসেবক তত্ত্বাবধায়নে ছিল রাতুল রায়, সাবরিনা মিম, প্রিয়াংকা সরকার পূজা, পার্থ সাহা, রিপন রায় ও দিপঙ্কর কর্মকার।

‘সবার পাঠশালা’র প্রতিষ্ঠাতা সমন্বয়ক রাতুল রায় বলেন, আমাদের ‘সবার পাঠশালা’ মূলত একটি শিক্ষা মূলক সংগঠন। শিক্ষামূলক সংগঠন হলেও বিভিন্ন সামাজিক, মানবিক ও জলবায়ূ-জীববৈচিত্র সংরক্ষনে কাজ করে যাচ্ছে সম্মানিত উপদেষ্টা স্যারদের তত্ত্বাবধায়নে।

‘সবার পাঠশালা’ প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত একঝাঁক তরুণ শিক্ষার্থীর হাত ধরে এগিয়ে চলছে। সংগঠনটি শিক্ষা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়াসহ অন্যান্য মানবিক কাজ যেমন শীত বস্ত্র বিতরণ, বৃক্ষরোপণ, গরীব কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য ও বস্ত্র উপহার বিতরণ সহ অনেক ভালো ভালো কাজ করে যাচ্ছে দুর্বার গতিতে।’ এমনটিই বলেন ‘সবার পাঠশালা’র সম্মানিত উপদেষ্টা নীলফামারী সরকারি কলেজের প্রভাষক জনাব মোঃ সুলাইমান আলী।

২০২১’ ঘরোয়া অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নীলফামারী সরকারী কলেজের প্রভাষক জনাব মোঃ সুলাইমান আলী ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাগডোকরা নিমোজখানা স্কুল এন্ড কলেজের প্রভাষক তপু রায়। অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী অরবিন্দু কুমার রায়।
সঞ্চালনা ও পরিচালনা করেন জয় লালা ও পারুল আক্তার।
সার্বিক সেচ্ছাসেবক তত্ত্বাবধায়নে ছিল রাতুল রায়, সাবরিনা মিম, প্রিয়াংকা সরকার পূজা, পার্থ সাহা, রিপন রায় ও দিপঙ্কর কর্মকার।

‘সবার পাঠশালা’র প্রতিষ্ঠাতা সমন্বয়ক রাতুল রায় বলেন, আমাদের ‘সবার পাঠশালা’ মূলত একটি শিক্ষা মূলক সংগঠন। শিক্ষামূলক সংগঠন হলেও বিভিন্ন সামাজিক, মানবিক ও জলবায়ূ-জীববৈচিত্র সংরক্ষনে কাজ করে যাচ্ছে সম্মানিত উপদেষ্টা স্যারদের তত্ত্বাবধায়নে।

‘সবার পাঠশালা’ প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত একঝাঁক তরুণ শিক্ষার্থীর হাত ধরে এগিয়ে চলছে। সংগঠনটি শিক্ষা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়াসহ অন্যান্য মানবিক কাজ যেমন শীত বস্ত্র বিতরণ, বৃক্ষরোপণ, গরীব কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য ও বস্ত্র উপহার বিতরণ সহ অনেক ভালো ভালো কাজ করে যাচ্ছে দুর্বার গতিতে।’ এমনটিই বলেন ‘সবার পাঠশালা’র সম্মানিত উপদেষ্টা নীলফামারী সরকারি কলেজের প্রভাষক জনাব মোঃ সুলাইমান আলী।

আপনার মতামত দিন