হলিউডে অভিনয়ের স্বপ্ন দেখে দিহান

পরিচয় প্রতিবেদক:
আরিয়ান মোহাম্মদ দিহান। টেলিভিশন বিজ্ঞাপনচিত্রের একটি পরিচিত মুখ। সে বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুলে এবার
স্ট্যান্ডার্ড ওয়ানে পড়ছে। বয়স মাত্র ৭ বছর। মাত্র চার বছর বয়সেই ২০১৮ সালে ‘কিডস প্যারাডাইস মডেল হান্ট’ এর অডিশন দিয়ে সহস্রাধিক প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন হয়। সেই থেকে মিডিয়ায় পথচলা তার। মাঝখানে ছিলো এক বছরের বিরতি। এই বয়সেই ত্রিশটিরও বেশি টেলিভিশন বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয় করেছে সে। শুধু টেলিভিশন বিজ্ঞাপন চিত্রেই নয় নাটক ও সিনেমাতেও অভিনয় করেছে দিহান।

হৃদি হক পরিচালিত মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র ‘১৯৭১ এর সেই সব দিন’ এ অভিনয় করছে দিহান। সিনেমাটির দুই চতুর্থাংশ শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। আরও দুইটি চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার কথা চলছে বলে জানায় দিহান। কাজল আরেফিন ওমি পরিচালিত ধারাবাহিক নাটক ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ ও বিশেষ নাটক ‘স্টেডিয়াম’ এ বিশেষ চরিত্রে অভিনয় করেছে দিহান।

আইডিএলসি ব্যাংক, নগদ, ফুডপান্ডা, প্রাণ ফ্রুটো, ডানো, রবি, ফ্রেশ নুডল্স সহ অনেকগুলো প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করেছে সে। চিত্রনায়ক ফেরদৌস এর সাথে এইচআরএমএম স্টিল রড এর বিজ্ঞাপনচিত্রেও খুব শীঘ্রই দেখা যাবে দিহানকে। এছাড়া এপেক্স, জিপি, প্রাণ, সিটি ব্যাংক, সারাহ সহ অনেকগুলো ফ্যাশন হাউজের ফটোশুটে মডেল হয়েছে ছোট্ট দিহান।

দিহানের প্রিয় যত…
দিহানের সবচেয়ে প্রিয় কাজ হচ্ছে খাওয়া। সে খেতে খুব পছন্দ করে, সব ধরণের মুখরোচক খাবারের উপর এক্সপেরিমেন্ট করে। তার পছন্দের খাবার স্ট্রবেরি, চিকেন ফ্রাই, বিরিয়ানি, পিৎজা ও বার্গার। রাতে ঘুমানোর আগে ভাইয়ের সাথে প্রতিযোগিতা করে দুধ খেতে খুব পছন্দ করে। খেলাধুলাও তার ভীষণ প্রিয়। খেলার সময় তার অন্য কোন কিছুর কথা মনেই থাকে না। ক্রিকেট, সাইকেলিং ও দৌড় তার পছন্দের খেলা। আর তার সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু হচ্ছে তার চার বছরের বড় ভাই রিহান। রিহানের সাথে খেলতেই তার বেশি পছন্দ। দিহান ইউটিউব দেখতেও পছন্দ করে। সময় পেলে ইউটিউবে বিভিন্ন ব্লগ, মুভি সিরিজ দেখে। আরেকটি মজার ব্যাপার হলো, দিহান ইউটিউবে বিভিন্ন খাবারের রিভিউ দেখে এবং সেখানে গিয়ে সে খাবার টেস্ট করে। ঘুরতেও তার অনেক পছন্দ।

পড়ালেখা ও অভিনয়
আম্মু তাকে বিভিন্ন কাজের স্ক্রিপ্ট বুঝিয়ে দেন, আব্বু বুঝিয়ে দেন অভিনয়। আব্বু-আম্মু ও বড় ভাই রিহানের অনুপ্রেরণাতেই দিহান কাজ করতে বেশি উৎসাহিত হয়। দিহান পড়ালেখা ও অভিনয় দুইটাতেই খুব সিরিয়াস। সে ক্লাসে সবসময়ই ফার্স্ট হয়ে আসছে। স্কুলের বাৎসরিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতাতেও প্রতিবারই ১ম না হয় ২য় পুরস্কারটি তার দখলেই থাকে।


প্রেরণা ও স্বপ্ন
দিহান বড় হয়ে ইঞ্জিনিয়ার হতে চায়। আর অভিনয়টাও সমানতালে চালিয়ে যেতে চায়। তার প্রিয় ব্যক্তিত্ব জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী তাহসান খান, তার পার্সোনালিটি দিহানের খুব ভালো লাগে। সে বড় হয়ে তাহসানের মতো হতে চায়। আর হলিউড এর Chris Hemsworth এর মুভিগুলো দেখে তার অনেক ভালো লাগে। ভবিষ্যতে সে হলিউডেও কাজ করার স্বপ্ন দেখে।
অসহায় মানুষদের জন্যও কিছু করতে চায় দিহান। দিহানের মা জানায় ‘ পথে কেউ হাত পাতলে সাথে সাথে দিহান ব্যাগে টাকা পয়সা যা থাকে সব দিয়ে দেয়ার পায়তারা শুরু করে। আর বলে মা, আমি বড় হয়ে সব টাকা ওইদের জন্য খরচ করবো।’

প্রথম চলচ্চিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে
প্রথম চলচ্চিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে দিহান জানায়, ‘আমার প্রথম চলচ্চিত্র নিয়ে আমি খুব গর্বিত। কারণ এটি মুক্তিযুদ্ধের একটা চলচ্চিত্র। এই এক চলচ্চিত্রের ভিতর আমি সমস্ত গুরুজনদের সান্নিধ্য পেয়েছি। চলচ্চিত্রে আমার মা হিসেবে অভিনয় করেছেন তারিন, বাবার চরিত্রে লিটু আনাম, দাদা জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, চাচা সজল, ফেরদৌস। পরিচালক হৃদি হক আন্টি, তারপরে চাচি আছে প্রীতি আন্টি। আমি সবার আদর ভালোবাসা পেয়েছি। তেমনি সিনেমাটিতেও সকলের আদর ভালোবাসায় পরিপূর্ণ আমার চরিত্র।

মজার ঘটনা
দিহান মজার ঘটনা প্রসঙ্গে বলে- ছোট একটা ঘটনা শেয়ার করি, আমার ছবির প্রথম স্লট শুটিং হয় গত ডিসেম্বরে। তখন কনকনে শীত। ঠাকুরগাঁওয়ে রাত সাড়ে ৩ টা আমি আব্বুর কোলে ঘুমোচ্ছি। লেট নাইট সবাই শুট করে ক্লান্ত। আন্টি চিন্তা করছিল আমি শট দিব কিনা। আন্টি বললো- দিহান ক্যামেরা রেডি, আমি সাথে সাথে উঠে বলেছি- আন্টি আমিও রেডি এবং একবারেই শট ডান হয়ে গেছে। সবাই এত খুশি হয়েছিল, আমাকে জড়িয়ে ধরে চুমু খেয়েছে। ফেরদৌস আংকেল আমাকে আর আমার ভাইয়াকে নিয়ে গাড়ি দিয়ে ঠাকুরগাঁও শহর ঘুরে বেড়িয়েছে, পিঠা খাইয়েছে। আসার সময় অনেক খাবার আর গিফট দিয়েছে। আমি অনেক খুশি হয়েছিলাম।

আপনার মতামত দিন